• আসসালামুআলাইকুম, আমাদের ওয়েবসাইটে উন্নয়ন মূলক কাজ চলিতেছে, হয়তো আপনাদের ওয়েব সাইটটি ভিজিট করতে সাময়ীক সমস্যা হতে পারে, সাময়ীক অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিক ভাবে দুঃখিত।

শুক্রবার, ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা রজব, ১৪৪১ হিজরী

শীয়া ধর্ম: ধারাবাহিক বিশ্লেষণ – পর্ব ০৩

শীয়া ধর্ম: ধারাবাহিক বিশ্লেষণ (তিন)

শীয়াদের বক্তব্য হলো তাদের কালিমা তাওহীদ, রিসালাত ও বেলায়তের সাক্ষ্যের সমষ্টি

তাদের কালিমা— لا اله إلا الله محمد رسول الله علي ولي الله وخليفته بلا فصل
পাকিস্তানের শীয়া আলেম মুহাম্মদ হোসাইন লেখেন:
তারা তাওহীদ ও রিসালাতের সাক্ষ্যের সাথেসাথে আলী রাঃ আল্লাহর ওলী ও নবী সাঃ এর সরাসরি খলীফা হিসেবে সাক্ষ্য প্রদানকে ইসলামের পূর্ণাঙ্গ অংশ হিসেবে সাব্যস্ত করে ৷

প্রিয় পাঠক, শীয়ারা কালিমায়ে তায়্যিবার মধ্যে বেলায়ত ও ইমামতের সংযোজন এবং সেইসাথে রিসালাতের চেয়ে শ্রেষ্ঠ আখ্যায়িত করে যে অংশ পরিবর্ধন করেছে তা মুসলমানের হৃদয়ে আঘাত করে ৷ যেমনঃ خليفة بلا فصل তথা হযরত আলী সরাসরি খলীফা ৷ অথচ এটা মানবেতিহাসের সর্ববৃহত্ মিথ্যাচার ৷ কারণ তাঁর পূর্বে আরো তিনখলীফা হযরত আবু বকর রাঃ, হযরত উমর রাঃ, হযরত উসমান রাঃ রয়েছেন ৷ এরকম আরেকটি বাক্য হলো— علي وصي رسول الله আরেকটি হৃদয়বিদারক আকীদার নির্লজ্জ ঘোষণা ৷ তাদের বক্তব্য মতে “হুযুর সাঃ তাঁর পরবর্তী খলীফার হবার ওসিয়ত করেছেন আলীর নামে, কিন্তু ডাকাত, জালেম আর মুনাফিকরা (অর্থাত সাহাবায়ে কেরাম) সেটা হতে দেয়নি ৷

যেমন মোল্লা বাকের মাজলিসী লেখেনঃ
আবু বকর উমর এবং সকল মুনাফিকদের সঙ্গে মিলে আহলে বাইতের উপর জুলুম করেছে ৷ সূত্রঃ তাদের কিতাব হক্কুল ইয়াকীন, পৃঃ 157

মোল্লা বাকের মাজলিসীর মতো একই আকীদা পোষণ করে খোমেনী সাহেব ৷ খোমেনী তার “কাশফুল আসরার ” 110 পৃষ্ঠায় লেখেন: শায়খাইন তথা আবু বকর ও উমর কুরআন হাদীসকে ছেলেখেলা বানিয়ে আহলে বাইত ও নবীকন্যা ফাতিমা ও তার সন্তানদের উপর জুলুম করেছেন ৷

পাকিস্তানী শীয়াদের আকীদাঃ

বাকের মাজলিসী ও খোমেনীর মতন পাকিস্তানী শীয়ারাও একই আকীদা পোষণ করে ৷ তারাও বলে যে, আসহাবে সালাসা আবু বকর, উমর ও উসমান জালেম এবং ডাকাত ছিলেন ৷ (নাউযুবিল্লাহ)
শীয়া আলেম মুহাম্মদ হোসাইন তার “তাজাল্লিয়াতে সাদাকত” 206 নম্বর পৃষ্ঠায় লিখেন:
“আমীরুল মুমিনীন হযরত আলী রাঃ পূর্বের তিনজনের খেলাফতকে ডাকাতী ও জুলুম এবং তিন খলীফাকে গোনাহগার, কাযযাব, গাদ্দার, খায়েন, জালেম, ডাকাত মনে করতেন এবং নিজেকে খেলাফতের সবচেয়ে বেশি হকদার মনে করতেন ৷”

একই কিতাবের 212 নম্বর পৃষ্ঠায় লিখেন:
উক্ত তিন খলীফা ছাড়াও অন্যান্য খেলাফতকেও আমরা জবরদস্তিমূলক গণ্য করি ৷৷

ক্রমশ ইনশাআল্লাহ ৷শিয়া

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

February 2020
S S M T W T F
« Jan    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
29  
shares