Today is Monday & August 26, 2019 (GMT+06)

New Muslim interview ebook

ল্যাপটপের চেয়েও শক্তিশালী আইফোন ১০!

অ্যাপলের সর্বশেষ আইফোন ৮, ৮ প্লাস এবং বিশেষ সংস্করণ আইফোন টেন সর্বশেষ বাজারে আসা ল্যাপটপের চেয়ে শক্তিশালী।

খটকা লাগলেও বিষয়টি এমনই। কারণ প্রতিষ্ঠানটির ডিজাইন করা চিপ ডিভাইসগুলোকে বরাবরই অন্যান্য মোবাইলের পারফরমেন্সকে টেক্কা দিয়ে আসছে।

সেই ধারাবাহিকতায় আইফোন ৮, ৮+ ও ১০ এ থাকা এ১১ বায়নিক চিপটিও ব্যতিক্রম নয়। আর তাতেই বাজিমাত অ্যাপল। সর্বশেষ আইফোনে ব্যবহার করা তাদের প্রসেসরটি ইন্টেলের সর্বশেষ ৭ম জেনারেশনের ল্যাপটপ কোর আই৫ প্রসেসরকেও পারফরমেন্সে টেক্কা দিচ্ছে।

প্রসেসরের পারফরমেন্স মাপার জনপ্রিয় সফটওয়্যার গিকবেঞ্চ চালানোর পর দেখা গেছে, এ১১ বায়নিক সমৃদ্ধ আইফোন ১০ এর সিঙ্গেল কোর পারফরমেন্স স্কোর এসেছে ৪০৬১, একই পরীক্ষায় কোর আই৫ সমৃদ্ধ ম্যাকবুক প্রোতে চালানোর পর স্কোর পাওয়া গিয়েছে ৪০৩৬।

স্কোর দুটি নিয়ে চুল-চেরা বিশ্লেষণ প্রয়োজন নেই, সরাসরি দেখা যাচ্ছে প্রসেসর দুটির সিঙ্গেল কোর প্রায় সমান ক্ষমতাধর।

তবে মাল্টিকোর, অর্থাৎ সবগুলো কোর ব্যবহার করে পরীক্ষাটি চালানো হলে এ১১ স্কোর করে ৯৯৫৯, অথচ কোর আই৫ মাত্র ৮৮৬৯ স্কোর করতে সক্ষম। ফলে দেখা যাচ্ছে, সব মিলিয়ে অ্যাপল এ১১ বায়নিক ৭ম জেনারেশন কোর আই৫ এর চাইতে দ্রুত কাজ করতে সক্ষম।

তাই বলে এমনটি ভাবার মানে নেই যে, আইফোন ১০ ম্যাকবুকের কাজ করতে পারবে, দুটির ডিজাইন ও কাজের পরিধি দুই ধরনের। তবে ভাবনার বিষয় হচ্ছে, অ্যাপল যদি ক্ষুদ্রাকৃতির প্রসেসর থেকে বড়সড় প্রসেসরের চাইতেও বেশি পারফরমেন্স বের করে নিতে পারে।

অ্যাপল ভবিষ্যতে ম্যাকবুকেও এমন প্রসেসর ব্যবহার করতে পারে। তখন কম্পিউটার দুনিয়ায় বড় ধরনের একটা ধাক্কা লাগবে এতে সন্দেহ নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *