• আসসালামুআলাইকুম, আমাদের ওয়েবসাইটে উন্নয়ন মূলক কাজ চলিতেছে, হয়তো আপনাদের ওয়েব সাইটটি ভিজিট করতে সাময়ীক সমস্যা হতে পারে, সাময়ীক অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিক ভাবে দুঃখিত।

শুক্রবার, ১০ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৮শে জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী

ভণ্ড পীর কুতুব বাগী সম্পর্কে জানুন এবং অন্য ভাইদের সতর্ক করুন

Khutbah Tv

বাংলাদেশের সবচেয়ে জঘন্য ধর্মব্যবসা হচ্ছে ভন্ডপীর ব্যবসা! এসব ভন্ডদের কুকর্ম সম্পর্কিত সংবাদ ও ভিডিও ক্লিপ পর্যাপ্ত পরিমাণে রয়েছে। লাখো-কোটি মানুষের সরল ধর্ম বিশ্বাসকে পুঁজি করে এসব ভন্ডরা কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে তারা সম্পদের পাহাড় বানাচ্ছে। ভন্ডদের ধোঁকায় পড়ে সরলমনা মুসলমান নর-নারীরা ঈমান হারাচ্ছে!
দেশে ভন্ড পীরের অভাব নেই। মানুষের দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে ঐ সমস্ত পীর নামধারী ভন্ডরা মানুষকে নিঃস্ব করছে। এ রকম হাজারো ভন্ডপীরদের মাঝে ভন্ডদের সেরা ভন্ড রাজারবাগী, আটরশী, দেওয়ানবাগী, চন্দ্রপূরী, মাইজভান্ডারী, কুতুববাগী, চন্দ্রপুরী গংরা! বক্ষমান নিবন্ধে কুখ্যাত ভন্ডপীর কুতুববাগী নিয়ে আলোকপাত করা হলো। —————-

কুতববাগী: এই ভন্ড পীরের ইলম-আমল নেই, নেই কোনো প্রতিষ্ঠানিক পড়াশোনাও! যা একুশে টিভি এবং এটিএন টিভিতে প্রকাশিত হয়েছে। এটিএন ও একুশে টিভির প্রকাশিত নিউজ, সন্ধানী প্রতিবেদনের নিউজের লিঙ্ক ভিডিও (কুতুববাগীর ভন্ডামী পর্ব ১ https://www.youtube.com/watch?v=LcDizbSi9bc

কুতুববাগ দরবার শরীফ থেকে প্রকাশিত গ্রন্থে পীরকে বলা হয়েছে-একবিংশ শতাব্দীর এই ক্রান্তিলগ্নে পাপসংকুল পৃথিবীতে সৃষ্টির কুল কায়েনাতের মূল উৎস, সিরাজাম মুনিরার ধারক ও বাহক হিসেবে পৃথিবীতে আগমন করেন আরেফে কামেল, মুর্শিদে মোকাম্মেল, যুগের শ্রেষ্ঠতম সাধক, হেদায়েতের হাদী, নকশ্বন্দীয়া ও মোজাদ্দেদীয়া তরিকার বর্তমানে একমাত্র খেলাফতপ্রাপ্ত পথপ্রদর্শক খাজাবাবা শাহসুফি কুতুববাগী (মা.জি.আ.) ক্বেবলাজান হুজুর! (আসতাগফিরুল্লাহ)
বর্তমান বিশ্বের পাপী-তাপী গুনাহগার মানুষের আত্মার উন্নতি ও আত্মশুদ্ধির মাধ্যমে পরশ পাথরের মতো মূল্যবান করে তোলার জন্য এবং নাজাত শিক্ষার শিক্ষক হিসেবে শুকুতুববাগীকে আল্লাহ খেলাফতী দিয়ে দুনিয়ায় প্রেরণ করেন। (নাউযুবিল্লাহ)

তার প্রকাশিত গ্রন্থগুলোর পৃষ্ঠায় পৃষ্ঠায় শিরক-কুফরে ভরা! এমনকি ওয়াজ-বক্তৃতা থেকে কে নিয়ে সবধরণের কর্মকান্ডই শিরকী! কুবুতবাগ দরবার শরিফ কর্তৃক প্রকাশিত এবং তাদের পীরজাদা হযরত খাজা গোলাম রহমানকে উৎসর্গ করা শানে কুতুববাগীর বইয়ে নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) ও পবিত্র হজ সম্পর্কে বিভিন্ন মনগড়া আপত্তিকর তথ্য প্রদান করা হয়।
রহমতের শান-এর একাংশে উল্লেখ করা হয়েছে
(১) কুতুববাগীর পাশে এক রাত করলে ইবাদত/হাজার সালের বন্দেগী হয় করলে মুহাব্বত/আল্লাহ আল্লাহ জিকিরেতে কালব হয় জারি (ঐ)/আসিলে তোমার দরবারে মকসুদ হয় পূরণ/একিন জানিয়া বিশ্বাস করিবেন যিনি/সাধন বিনে হয় না তবু সাধকের তরী (ঐ)।
(২) রহমানু রাহীম বলে, কেঁন্দে ডাকো বারে বার/তোমারি রহমতের দ্বারে বাবা মিসকিন মোরা সেজেছি/দয়া করে দাওগো রহমত, দিলের ঝোলা পেতেছি।
(৩) তুমি আমার দুই নয়নের তারা/দয়াল বাবা তুমি আমার দুই নয়নের তারা/তুমি যারে করো দয়া লাভ কি তাহার মক্কায় যাইয়া/মুর্শিদ কেবলা সামনে যাহার খাড়া (ঐ)/আমি যে কাঙ্গালিনী কাঙ্গালেরও বন্ধু গো তুমি/ওই চরণে দিও আমায় জায়গা (ঐ)।
শুধু এ গ্রন্থটিই নয় তার লিখিত সবগ্রন্থেই শিরকি কথায় ভরপুর!

বিনা পুঁজিতে সবচেয়ে লাভজনক ধর্মব্যবসা-ই হলো ‘পীর’ ব্যবসা। রাজধানীর প্রাণকেন্দ্রসহদেশের আনাচে-কানাচে গড়ে ওঠেছে ভন্ড পীর ও ধর্মব্যসয়ায়ী ওলামায়ে ছু’দের আস্তানা! বেশীর ভাগ ক্ষেত্রেই প্রমাণিত হয়েছে এরা ভন্ড।
বাংলাদেশ সরকারের নাকের ডগার উপর দিয়ে এ ধরনের ভন্ডরা বিভিন্ন রকম ভাওতাবাজী দিয়ে সাধারণ নিরীহ মানুষের অর্থ-সম্পদ গিলে খাচ্ছে! ভন্ডদেও ধোঁকায় পরে সরলমনা মুসলমনান নর-নারীরা ঈমান হারাচ্ছেন!
যার ভুরি ভুরি প্রমাণ জাতীয় দৈনিক, অনলাইন পোর্টাল, ইলেকট্রনিক মিডিয়া প্রায়ই ছাপা হচ্ছে এবং ইউটিউবেও রয়েছে এর অজস্র প্রমাণ।
ভন্ডদের ভন্ডামী বন্ধে সরকার-প্রশাসনের কোন ধরনের মাথা ব্যাথা নেই। বিকৃত রুচির ভন্ডদের উপদ্রবে জনসাধারণ অতিষ্ট। কেউ কেউ বাড়ী বাড়ী যেয়ে পানি পড়ার ব্যবসা করে। সুযোগ বুঝে চুরি, ডাকাতিও করে। পাড়ায় পাড়ায় আরেক ধরনের ভন্ডপীর ব্যবসায়ীদের দেখা যায় লাল কাপড় শরীরে পেঁচিয়ে আছে, যার দ্বারা শরীরের বেশীর ভাগ গোপন অঙ্গ নজরে আসে। এরা হুজুরায় বসে সংঘবদ্ধ ভন্ডামীর দ্বারা মানুষ ঘায়েল করে।
বাংলাদেশের প্রতিটি জেলায়, প্রায় প্রতিটি এলাকায় এ ধরনের ভন্ডদের দৌরত্মে আজ সরকারের নীরবতা প্রশ্নবিদ্ধ। কোন সরকারের আমলেই এদের বিচার হয় না। এমনকি বেশীরভাগ ক্ষেত্রে এদের খবরও ছাপা হয় না। ভন্ড পীরদের বিরুদ্ধে কোন মামলা বা সাজা আজ অবধি কেন হয় না? ভন্ডরা শিরক ও কুফরি কালামের মাধ্যমে মানুষকে বিভ্রান্ত করে অসহায় মানুষের সর্বশান্ত করে দিচ্ছে। ভন্ডামির কিছু প্রমাণিক লিঙ্ক নিম্নে উল্লেখ করছি।
কুতুববাগীর ভন্ডামী পর্ব ১। (এনটিভিতে প্রকাশিত)
https://www.youtube.com/watch?v=iELKyRYWCBk
https://www.youtube.com/watch?v=Yod7Zfdu4s8
https://www.youtube.com/watch?v=byvBiR3M8kE
https://www.youtube.com/watch?v=YUzCrZH31eQ

পরিশেষে বলা যায়-এধরনের ভন্ডপীরেরা ইসলামের কলঙ্ক, আলেম-ওলামাদের কলঙ্ক। ভন্ডদের ভন্ডামী মোকাবিলায় এলাকার যুব সমাজসহ সচেতন ধর্মপ্রাণ এবং হককানি আলেম-ওলামাদেরকে এগিয়ে আসতে হবে।

এহসান বিন মুজাহিরের কলাম থেকে —

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

January 2020
S S M T W T F
« Dec    
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031
shares