রবিবার, ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৪ই রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি

লালদীঘির মহাসমাবেশের সফলতা, পরবর্তী ঘটনা ও মিথ্যা প্রচারণা – আজিজুল হক ইসলামাবাদী

Khutbah Tv 

Image may contain: one or more people, crowd, stadium and outdoor

আজিজুল হক ইসলামাবাদীঃ আলহামদুলিল্লাহ অনেক চক্রান্ত ও ষড়যন্ত্রের পরও আমীরে হেফাজতের আহবানে লালদীঘির মহাসমাবেশ আল্লাহরর রহমতে সফল হয়েছে। শুরু থেক মুনাজাত পর্যন্ত কোন ধরনের বিশৃঙ্খলা হয়নি। তাই আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া ও উপস্থিত সকল ওলামা তোলাবা ও মুসলমান ভাইদের আন্তরিক মোবারকবাদ জানাই।
কিন্তু এই সফলতায় হিংসা পরায়ণ হয়ে
কিছু কুচক্রিমহল আজ হেফাজতের মহাসমাবেশকে কলুষিত করার কুমতলবে ফেইসবুকে মিথ্যা বিভ্রান্তিমূলক নানা কল্প কাহিনী অবতারণা করছে।

সমাবেশে মুফতি ইজহার সাহেবকে বক্তৃতার সুযোগ দিতে না পারায় মাইকে ঘোষণা দিয়ে আমি দু:খ প্রকাশ করেছি। এই সমাবেশে মুফতি হারুন ভাই ও তার ছাত্ররা সহযোগিতা করেছেন। সেজন্য তাদের শুকরিয়া জানাই। আমি মুফতি সাহেবের সন্তানের মতো। তাকে সময় দিতে না পেরে আমি ব্যথিত । সঙ্গত কারণে মুফতি সাহেব ক্ষুব্ধ হওয়ারই কথা। তিনি তা প্রকাশও করেছেন। উস্কানী দিয়ে অনেকে তাকে উত্তেজিতও করেছেন। যার পরবর্তী ঘটনা খুবই দু:খজনক।

অনেকে ওনাকে বক্তব্য দেওয়ার সুযোগ দেয়া হয়নি, বা দিতে দেয়নি এই অজুহাতে প্রতিহিংসার কারণে দোষটা আমার ওপরেই চাপিয়ে দিয়েছেন। সে দিন স্টেইজে হরুন ভাইয়ের সাথে আমার কোনো কথা কাটাকাটি বা হাতাহাতির ঘটনাতো দুরের কথা সামনাসামনি আলাপই হয়নি। তার পরও মিথ্যাচার করা হচ্ছে। ছবি ব্যঙ্গ করে পোষ্ট দিয়ে সাধারন মানুষকে কি মেসেজ দেয়া হচ্ছে?

আবার মাওলানা আনাস মাদানীর নির্দেশে আমি দিই নাই এরকম জঘণ্য মিথ্যাচারও করছেন। অথচ তার সাথে এরকম কোন আলোচনাই হয়নি।

আমারা সকলের কাছে একটি বিষয় স্পষ্ট করতে চাই যে, হেফাজতের কোন বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেয়ার বা নেয়ার এখতেয়ার কি মাওলানা আনাস সাহেব বা আমার আছে? যদি না থাকে তাহলে আমাদের বিরুদ্ধে এতো মিথ্যাচার কেন ? কিসের জন্য করা হচ্ছে? কারো কাছে আমরা অপরাধী মনে হলে তার প্রতিবাদ করার তরীকা কি এটা ?

সমাবেশের পর থেকে কিছু পোষ্ট দেখছি যার সাথে বাস্তবতার কোন মিল নেই। এসব মিথ্যা তথ্য পোষ্ট করে স্যোসাল মিডিয়ায় যারা সমালোচনার ঝড় তুলছেন, জানিনা তারা হেফাজতের কোন ধরনের কল্যাণকামী ও শুভাকাঙ্ক্ষী। এতে করে ওলামায়ে কেরাম ও সংগঠনের ভাবমূর্তি কি বিনষ্ট হচ্ছে না?

হেফাজতে ইসলাম একটি খালেস ঈমানী আন্দোলন, জাতীয় ঐক্যের প্লাটফরম, রুহানি ও আধ্যাত্মিক মিশন। শায়খুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফী দা.বা. এই সংগঠনের আমীর।
হযরতের সম্মান পুরা জামাতের সম্মান।

বাম ও রাম মিডিয়া আর নাস্তিক্যবাদী গোষ্ঠী হেফাজতের বিরুদ্ধে কুৎসা রটাচ্ছে।
তারা সুযোগ পেলেই তিলকে তাল বানিয়ে অপপ্রচার চালায়। আর কতিপয় দায়িত্বশীল তাদের হাতে হাতিয়ার তুলে দিচ্ছে। উস্কানী দেয়া হচ্ছে নানা পদক্ষেপ নেয়ার জন্য।
আমরা আশা করি জাতির বৃহত্তর স্বার্থে আলেম সমাজ ও হেফাজতের কল্যানে আমরা সচেষ্ট হবো।

৫ তারিখ রাতের একটি ছবি দিয়ে সুযোগসন্ধানীরা আমাকে বিতর্কিত করার অপচেষ্ঠাও চালিয়েছে।

আজিজুল হক ইসলামাবাদী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Archives

November 2020
S S M T W T F
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930  
shares