বুধবার, ১৮ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৯শে রজব, ১৪৪২ হিজরি

ইচ্ছেকৃত রোযা ভঙ্গ করলে কাযা আবশ্যক না কাফফারা?

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

রোযা রাখার পর পানাহার বা স্ত্রী সহবাসের মাধ্যমে ইচ্ছেকৃত রোযা ভঙ্গ করা মারাত্মক গোনাহের কাজ। এর দ্বারা রমজান পরবর্তী উক্ত রোজার কাযা আদায়ও আবশ্যক হয়, আবার কাফফারা আদায়ও আবশ্যক হয়।

রোযার কাফফারা হল, রমজান শেষ হবার পর লাগাতার ৬০দিন রোযা রাখতে হবে। শারিরীকভাবে অক্ষম হলে তাহলে ৬০ জন মিসকিনকে দুইবেলা খানা খাওয়াতে হবে। যার মূল্য হল সদকায়ে ফিতির পরিমাণ। অর্থাৎ একটি সদকায়ে ফিতির পরিমাণ টাকা ৬০জন মিসকিনকে দিতে হবে।

রোযা রাখতে সক্ষম থাকা অবস্থায় টাকা দিয়ে কাফফারা আদায় করলে আদায় হবে না।

عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ، قَالَ: أَتَى النَّبِيَّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ رَجُلٌ فَقَالَ: هَلَكْتُ، قَالَ: «وَمَا أَهْلَكَكَ؟» قَالَ: وَقَعْتُ عَلَى امْرَأَتِي فِي رَمَضَانَ، فَقَالَ النَّبِيُّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «أَعْتِقْ رَقَبَةً» قَالَ: لَا أَجِدُ، قَالَ: «صُمْ شَهْرَيْنِ مُتَتَابِعَيْنِ» قَالَ: لَا أُطِيقُ، قَالَ: «أَطْعِمْ سِتِّينَ مِسْكِينًا»

অনুবাদ- হযরত আবূ হুরায়রা রাঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূল সাঃ এর কাছে এক ব্যক্তি এসে বলল, আমি ধ্বংস হয়ে গেছি। রাসূল সাঃ জিজ্ঞাসা করলেন, তোমাকে কে ধ্বংস করেছে? সাহাবী বললেন, রমজানে আমি আমার স্ত্রীর সাথে সহবাস করে ফেলেছি। রাসূল সাঃ তাকে বললেন, তাহলে এর বদলে একটি গোলাম আযাদ কর। সাহাবী বললেন, আমি এতে সক্ষম নই। নবীজী সাঃ বললেন, তাহলে লাগাতার দুই মাস রোযা রাখ। সাহাবী বললেন, আমি এতেও সক্ষম নই। তখন রাসূল সাঃ বললেন, তাহলে তুমি ৬০ জন মিসকিনকে খানা খাওয়াও। {সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস নং-১৬৭১, মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং-৬৯৪৪, মুসনাদুল বাজ্জার, হাদীস নং-১১০৭, সহীহ ইবনে খুজাইমা, হাদীস নং-১৯৪৯, সহীহ ইবনে হিব্বান, হাদীস নং-৩৫২৭}

এক রমজানে একাধিক রোযা ভঙ্গ করার দ্বারা একটি কাফফারা আদায় করলেই যথেষ্ট হবে। চাই পানাহারের মাধ্যমে ভঙ্গ করুক, বা সহবাস করার দ্বারা ভঙ্গ করুক। [ইমদাদুল ফাতাওয়া-২/১৩৪-১৩৬]


ولو تكرر فطره ولم يكفر للأول يكفيه واحدة ولو في رمضانين عند محمد وعليه الاعتماد بزازية ومجتبى وغيرهما واختار بعضهم للفتوى أن الفطر بغير الجماع تداخل وإلا لا (رد المحتار، كتاب الصوم، مطلب فى الكفارة-3/391، مراقى الفلاح، فصل فى الكفارة-552، البحر الرائق–2/277

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

ইমেইল– [email protected]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Archives

March 2021
S S M T W T F
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  
shares
%d bloggers like this: