Today is Sunday & February 24, 2019 (GMT+06)

New Muslim interview ebook

কওমী সনদের স্বীকৃতি; আওয়ামীলীগের অবদান তবে… মামুনুল হক

কওমী সনদের স্বীকৃতি আওয়ামীলীগের অবদান তবে…
——————————————————–
আমার জন্ম স্বাধীন বাংলাদেশে ৷ বাংলাদেশের সামাজিক ও রাজনৈতিক পরিবেশ কিছুটা অনুভব করতে শিখেছি উনিশশ আশির দশক থেকে ৷ সেটা আমার শৈশবের সময় ৷ কোনো আলেম আওয়ামীলীগের প্রতি সমর্থন পোষণ করতে পারে, আমাদের দেখা তখনকার ঐ সময়ে এটা চিন্তারও অতীত ছিল ৷ এর পর দশক দশক করে প্রায় অর্ধ শতক সময় গড়িয়ে গেছে ৷ মানুষের চিন্তায়ও এসেছে অনেক পরিবর্তন ৷ আওয়ামীলীগকেও আলেমসমাজ থেকে বিচ্ছিন্নতার জন্য গুণতে হয়েছে অনেক মাশুল ৷ এক সময় আওয়ামীলীগ পরিবর্তন এনেছে তার চিন্তা-ধারায় ৷ ফলে দৃষ্টিভঙ্গিও বদলেছে অনেক আলেম-ওলামার ৷

ইসলামপন্থী কোনো দলের সাথে আওয়ামীলীগের সুসম্পর্ক স্বাধীনতা উত্তরকালে প্রথম দেখা যায় ১৯৯৬ এর তত্বাবধায়ক দাবিতে জামায়াতে ইসলামীর সাথে যুগপৎ আন্দোলনের মাধ্যমে ৷ এর আগে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের জন্য আওয়ামীপ্রার্থীর গোলাম আযম লাহেবের বাসায় গিয়ে তার কদমবুচির ঘটনাও প্রত্যক্ষ করেছে বাংলাদেশের মানুষ ৷ এরপর ২০০৬এ শায়খুল হাদীস আল্লামা আজিজুল হক রাহিমাহুল্লাহর কাছে এসে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের সাথে পাঁচদফা চুক্তি স্বাক্ষর ছিল আওয়ামীলীগের ইতিহাসে ইসলামপন্থীদের সাথে সখ্যতা গড়ার সবচেয়ে বড় নযীর ৷ বামপন্থী মিডিয়া ও বহির্শক্তির চাপে শেষতক আওয়ামীলীগ সেই চুক্তি থেকে পিছে হটলেও ক্ষমতায় এসে পাঁচদফার একাধিক দফা বাস্তবায়নে তৎপর হয় ৷

বৈধ ও অবৈধ মিলিয়ে টানা দশবছর ক্ষমতায় থাকাকালীন আওয়ামীলীগ ইসলামপন্থী ও আলেমসমাজের বেশ কয়েকটি দাবি পুরণ করেছে ৷ এই অবদানের কৃতিত্ব আওয়ামীলীগের ন্যায্য পাওনা ৷ আওয়ামীলীগ হাইকোর্টের ফতোয়া বিরোধী রায় বাতিল করিয়ে যেভাবে আলেমদের ফতোয়া প্রদানের অধিকার সংরক্ষণ করেছে, সে জন্য প্রশংসা করতেই হবে ৷ এরপর হেফাজতের আন্দোলনের মুখে পাঠ্যসূচির পরিবর্তন ও সুপ্রীমকোর্টের সম্মুখ থেকে থেমিসের মূর্তি স্থানান্তর আওয়ামীলীগের প্রতি সমীহজাগানিয়া বিষয় ৷ আর সর্বশেষ কওমী সনদের স্বীকৃতির দাবি পুরণে আওয়ামীলীগ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ যাবৎকার ভূমিকাকে তো এক কথায় অবিস্মরণীয়ই বলা যায় ৷ মন্ত্রী ও আমলাদের মতামতকে উপেক্ষা করে ওলামায়ে কেরামের চাহিদামাফিক স্বীকৃতি প্রদান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একক এখতেয়ার ও কৃতিত্বের বিষয় ৷

এ সকল অবদানের পর আওয়ামীলীগ চাইছে ওলামায়ে কেরাম তাদের এই কৃতিত্বের স্বীকৃতি দিক এবং তাদের স্বপক্ষে মাঠে-ময়দানে কিছু ভূমিকা পালন করুক ৷ আওয়ামীলীগের এই চাওয়া মাত্রাতিরিক্ত কিছু নয় ৷ তবে ওলামায়ে কেরাম এক্ষেত্রে আবেগে ভেসে গেলে চলবে না ৷ তাদের ভূমিকা হওয়া উচিৎ সুচিন্তিত ও দায়িত্বশীল ৷ স্বীকৃতির দাবি পুরণের জন্য আমরা আওয়ামীলীগকে ধন্যবাদ জানাব ৷ তাই বলে তাদের দশবছরের অন্যান্য কার্যকলাপ ভুলে যেতে পারি না ৷ ভালোটুকুর জন্য যেমন ধন্যবাদ জানাতে কার্পণ্য করা যাবে না, তেমনি মন্দটার ধিক্কার জানাতেও কুণ্ঠিত হওয়া চলবে না ৷ হেফাজতে ইসলামের সাথে আওয়ামী আচরণের কথা নাইবা বললাম ৷ শাহাদাতের রক্তকে রঙমাখা নাটক আখ্যায়িত করার বেদনাও হয়ত ভুলে গেলাম আমাদের শিক্ষাকে মূল্যায়নের অপার আনন্দে ৷ তাই বলে আমরা কূপমন্ডক হতে পারি না ৷ কওমীর নিজস্ব ইস্যু ছাড়া দেশ-জাতির অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলোকে উপেক্ষা করে আলেমসমাজের দায়িত্ব পালন হতে পারে না ৷ নিরপেক্ষ নির্বাচনব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দেশে হিংসা ও হানাহানির রাজনীতিকে যেভাবে প্রতিষ্ঠিত করেছে আওয়ামীলীগ, তাকে প্রশ্রয় দেয়ার কোনো সুযোগ নেই ৷ আজ তারা ভয় পাচ্ছে, তারা ক্ষমতা হারালে লক্ষ লাশ পড়বে- এ লাশ পড়লে তার দায় তো তাদেরকেই নিতে হবে ৷ খুন,গুম ও হত্যার রাজনীতি বাংলাদেশে আগেও ছিল, তবে আওয়ামীলীগের চলতি আমলে তা সকল মাত্রা ছাড়িয়েছে ৷ বিচারিক হত্যাকান্ডের মাধ্যমে হত্যার রাজনীতি প্রতিষ্ঠা করেছে ৷ এভাবে মানুষের ন্যূনতম জীবনের নিরাপত্তা বিঘ্নিত করে একটি নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দিয়েছে দেশকে ৷ একজন সচেতন ও দেশপ্রেমিক নাগরিক হিসাবে এই বিষয়গুলো থেকে চোখ বন্ধ করে রাখা যায় না ৷

আওয়ামীলীগ চায় আলেমসমাজ তাদের অবদানের স্বীকৃতি দিক, তাদের স্বপক্ষে ভূমিকা রাখুক ৷ আলেমসমাজ তা রাখবে, কিন্তু আওয়ামীলীগকে তার অন্যায়ের হাত গুটিয়ে নিতে হবে ৷ দেশকে স্বাধীনভাবে সামনে এগিয়ে যেতে দিতে হবে ৷ নাগরিকদেরকে ভোটাধিকার দিতে হবে ৷ শুধু কওমী স্বীকৃতি দিয়ে স্বীকৃতির অভনন্দন পাওয়া যাবে ৷ কিন্তু পূর্ণাঙ্গ সমর্থন পেতে হলে জনগণের কল্যাণমুখী ভূমিকায় অবতীর্ণ হতে হবে ৷ এছাড়া আওয়ামীলীগের সাথে গাটছড়া বাঁধা গ্রহনযোগ্যতা পাবে না ৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *